রাজনীতির বেড়াজাল বড় খারাপ জিনিস, একবার আটকে গেলে তো নিস্তার নেই।

রাজনীতির বেড়াজাল বড় খারাপ জিনিস, একবার আটকে গেলে তো নিস্তার নেই। মালায়ালাম ইন্ড্রাস্টি আমার অন্যতম পছন্দের ইন্ড্রাস্টি। ২০২১ সালেই এই মুভি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে প্রিমিয়ার হয়েছে। সেই থেকে লিস্টে ছিল অবশেষে দেখে ফেললাম। মালায়ালাম ইন্ড্রাস্টির জুড়ি নাই, সাধারণ গল্প কে কত স্মার্ট ভাবে উপস্থাপন করে। এই মুভি পরিচালক ছিলেন চার্লি মুভির পরিচালক মার্টিন প্রাক্কাত।

রাজনীতি যেমন ভালো আবার তেমনই খারাপ। আর রাজনীতির বেড়াজালে যে একবার আটকে যাবে সে আর বের হতে পারবে না। এই রাজনীতির খপ্পরে পরে কতশত নিষ্পাপ মানুষের জীবন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে যার হিসাব নাই। এই যুগে মানুষকে রাজনীতির জন্য বেশি ব্যবহার করা হয়। এই রকম কিছু কাহিনী নিয়ে এই মুভি। কিন্তু বেপার টা চলে আসে সার্ভাইভালের।

রাজনীতির বেড়াজাল বড় খারাপ জিনিস

প্লটঃ প্রবীণ সদ্য পুলিশে জয়েন করেছে। এসআই মানিয়ানের সাথে তার ভালো সম্পর্ক। পরে পরিচিত হয় মহিলা পুলিশ সুনিতার সাথে। সেই সময় ওই অঞ্চলে ভোটের মৌসুম চলছে। তখন সুনিতার কিছু পরিচিত মানুষদের সাথে পুলিশ স্টেশনে ঝামেলায় জড়িয়ে পরে প্রবীণ এবং মানিয়ান। পরবর্তীতে এক রাতে ভোটের পার্টি থেকে ফেরার পথে তাদের গাড়ির সাথে একজনের অ্যাক্সিডেন্ট হয়।

বাংলালিংক ইন্টারনেট অফার ২০২১ বাংলালিংকের সকল ইন্টারনেট অফার

পরে বুঝতে পারে যে এইটা ওই সব ঝামেলাকারীর একজন। তখন বেঁচে থাকায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। এইদিকে এরা ৩ জনের কেউ গাড়ি ড্রাইভ করতে ছিল না। কিন্তু তাদের মিথ্যা কেসে ফাঁসাতে থাকে। এই দিকে যে মারা গেছে তার বন্ধুরা তাদের খুঁজছে। এই সব থেকে বাঁচার জন্য ৩ জন পালাতে থাকে। তাহলে তারা কি সার্ভাইব করতে পারবে? এই কেসের কি হবে?

রাজনীতির বেড়াজাল বড় খারাপ জিনিস

কুঞ্চাকো বোবান এই মানুষটা সব সময় সেরা। সব মুভিতেই সেরা অভিনয় করে। আর যা করে একদম ন্যাচারাল লাগে। জুজু গর্জের অভিনয় ভালো লেগেছে। নিমিশা সব সময় চরিত্রের সাথে মিশে যেতে পারে। এই মুভিতেও তেমনটা ছিল৷ অন্যান্য সবাই ভালো করেছে।

জিপি ইন্টারনেট প্যাকেজ । জিপি সিমের ছোট ইনটারনেট প্যাকেজ সমূহ

সিনেমাটোগ্রাফি ছিল খুব সুন্দর। সাথে কেরালার কিছু সৌন্দর্য উপভোগ করেছি। বিজিএম টপ ক্লাস। সারভাইভালের সাথে ভালো ভাবেই কানেক্ট করতে ছিল। স্ক্রিনপ্লে থেকে সব কিছু ভালো ছিল। আসলে পরিচালক মনে হয় উদ্দেশ্য করে এই মুভি নির্মাণ করেছে।

Then help us, don’t help us

Then help us, don’t help us. – তাহলে আমাদের সাহায্য কর, আমাদের সাহায্য ই করো না। বাক্যটি অনেকটা অদ্ভুত শোনালেও, এমনটিই সিনেমার প্রাথমিক পর্যায়ে অত্যান্ত বিরক্তিক সাথে ফ্লিক(কেন্দ্রীয় চরিত্র) কে বলা হয়।যে কিনা সারাক্ষন বিভিন্ন আইডিয়া ও ইনভেনশনস নিয়ে ব্যস্ত থাকে।

যার সবসময় চিন্তা থাকে এন্ট কলনিকে গতানুগতিক চিন্তা থেকে বের করে নতুন কিছু করাতে, নতুন কিছু উদ্ভাবন করে কলনির সকল সদস্য কে সাহায্য করতে। কিন্তু এন্ট কলনির কেউই তার এই প্রচেষ্টা কে বুঝতে চায় না, সবাই ভাবে এগুলো হলো ফ্লিকের ক্রেইজিনেস। আর সবাই এমনটি ভাববেই না কেন, কারন তার উদ্ভাবন জিনিস শুধু ঝামেলারই সৃষ্টি করে।

বিকাশ এজেন্ট ব্যবসা ও বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

এন্ট কলনির পিপড়াগুলো প্রতি বছর একদল ঘাসফড়িং দের চাঁদা হিসেবে খাবার দেয়। আর এর জন্য তাদের প্রচুর পরিশ্রমও করতে হয়, কারন বর্ষা মৌসুম থেকে বাচার জন্য গ্রীষ্মের সময় নিজেদের খাবার সংগ্রহ করার পাশাপাশি ঘাসফড়িং দের জন্যও অতিরিক্ত খাবার সংগ্রহ করে একটি নির্দিষ্ট জায়গায় রাখতে হয়।

পাগলাটে আবিষ্কারক ফ্লিক

একবার এক বিরাট অঘটন ঘটে। সেই যে পাগলাটে আবিষ্কারক ফ্লিক, তার তৈরি এক মেশিনের জন্য ঘাসফড়িং দের সংগ্রহকৃত সবগুলো খাদ্য পানিতে পরে যায়। ঘাসফড়িং রা এসে খাবার না পেয়ে অনেক অত্যাচার করে, আর রাগান্বিত হয়ে খাবারের অর্ডার ডাবল করে দেয়। এন্ট কলনির সবাই অতিমাত্রায় বিরক্ত হয়ে ফ্লিক কে কলনি থেকে বের করে দেওয়ার আইডিয়া বের করে।

Happy Watching.☺️
Film: A Bug’s Life.
Language : English
Genre: Animation, Comedy, Kids & Family, Adventure.
Imdb: 7.2
Rotten Tomatoes: 92%
Personal : 8
Budget: $120 Million
Box Office: $ 363.3 Million

আইডিয়া অনুযায়ী ফ্লিক কে বলে যে, সে যাতে কলনির বাইরে গিয়ে ঘাসফড়িংদের প্রতিহত করতে বড় বড় প্রানী নিয়ে আসে। আর সবাই এই বুদ্ধি করে ফ্লিক কে কলনি থেকে তাড়িয়ে দেয়। এখন ফ্লিক কি এন্ট কলনির জন্য সাহায্য নিয়ে আসতে পারবে?

নাকি তাকে বাকি জীবন কলনির বাইরে থাকতে হবে? জানতে হলে আপনাকে দেখতে হবে পুরো মুভিটি।
ব্যাক্তিগতভাবে অ্যানিমেশন সিনেমার চরিত্রগুলোর মধ্যে আমার অন্যতম পছন্দের চরিত্র হলো ফ্লিক। যারা এখনো সিনেমাটি দেখেন নি, নিঃসন্দেহে দেখে নিতে পারেন।

Add a Comment

Your email address will not be published.