যে ৭টি বিষয় ত্যাগ ও গ্রহন করলে মানুষেসে দারিদ্রতা দুর হয় জেনে নিন

“আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ” সুপ্রিয় পাঠক মন্ডলী আমরা রাসূলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ২ জন সাহাবী হযরত আব্দুর রহমান ইবনে আউফ রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু হযরত ওসমান গনি রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু। আমরা এ দুজন সাহাবীকে সবাই চিনি। তারা ছিলেন অত্যাধিক পরিমাণে অর্থ সম্পদের মালিক। হালাল রুজি রুটিতে তাদের সম্পদের কমতি ছিল না। তাদের এই অঢেল সম্পদ তারা ইসলামের জন্য অকাতরে দান করেছে।

যে ৭টি বিষয় ত্যাগ ও গ্রহন করলে মানুষেসে দারিদ্রতা দুর হয় জেনে নিন

আজকে পৃথিবীতে অনেক দিন তার মুসলিম আছেন যারা চান রাসূলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর ধ্বনি সাহাবীদের মত নিজেরাও দুনিয়াতে প্রচুর পরিমাণে হালাল অর্থ উপার্জন করে দিন এবং ইসলামের খেদমত করতে। কিন্তু আমাদের মনের অজান্তে০৭ টি গুরুত্বপূর্ণ অভ্যাস রয়েছে যা আমাদের ছাড়েনা। যার কারণে আমরা তা করতে পারি না।

যে ৭টি বিষয় ত্যাগ ও গ্রহন করলে মানুষেসে দারিদ্রতা দুর হয় জেনে নিন

সুপ্রিয় আলোর পথের পাঠক মন্ডলী যাদের টাকা-পয়সা নাই যারা হতদরিদ্র হয়েছেন তাদের অনেক কষ্ট। আর এই অভাবের কারণেই আমাদের অশান্তি। আজ আপনাদের সামনে নিয়ে এসেছি  যেমন গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয়, তেমন গুরুত্বপূর্ণ কিছু ভুল।  জা করার কারণেই অতি দ্রুত বিদ্যুৎ গতিতে আমাদের দিকে অভাব আসতে থাকে। দারিদ্রতা আমাদের গ্রাস করে নেয়।  এই বিষয়গুলোর কাছ থেকে যদি আমরা দূরে থাকতে পারি তাহলে আমাদের কাছ থেকে দারিদ্রতা আমাদের কাছ থেকে পালাবে ইনশাআল্লাহ

তো আজকে আসুন আমরা জেনে নিই বিষয়গুলো কি কি? কেনাচাই ধনী হওয়ার জন্য? প্রত্যেকে চাই যে আমাদের সম্পদ আসুক এবং আমরা সবাই ধনী হই এবং হালাল উপার্জনের মাধ্যমে ধনী হয় এবং সেই সম্পদ আমরা দান সদকার মাধ্যমে দুনিয়া এবং আখেরাতের কল্যাণ অর্জন করি।  কেননা দরিদ্র থেকে মুক্ত থাকার জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া চেয়েছেন স্বয়ং “রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম”“রাসুল পাক সাঃ” জানতেন দরিদ্রতা অনেক সময় ঈমানকে নষ্ট করে দিতে পারে। প্রিয় পাঠক, আসুন কথা না বাড়িয়ে আজকে জেনে নিন যে সার্টিফিকেট দরিদ্রতা আর আসবেনা।

যারা তাড়াহুড়া করে নামাজ আদায়

যারা তাড়াহুড়া করে নামাজ আদায় করেনঃ যারা তাড়াহুড়া করে নামাজ আদায় করেন তাদের এই কারণেই দরিদ্রতা আসে। যে তারা তাড়াহুড়া করছেন নামাজের সময় মনে রাখবেন আপনি কার সামনে দাঁড়াচ্ছেন। আপনি মহান মাবুদ “আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের” সামনে দাঁড়াচ্ছেন। যিনি আপনার সৃষ্টিকর্তার, রিজিকদাতা, পালনকর্তা, বিপদ আপদ থেকে মুক্তি দান কারী। আপনি আপনার মালিকের সামনে দাঁড়িয়ে তারাকরছেন, আপনি কাকে তাড়াহুড়ো দেখাচ্ছেন। কখনো এই কাজটি করবেন না, দারিদ্রতার অন্যতম কারণ হচ্ছে সালাতে তাড়াহুড়া করা।

দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করাঃ দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করা যারা দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করেন তারা আজিজ একুয়া বৃষ্টি ছেড়ে দিন এটি শয়তানের অন্যতম একটি রাস্তা।এ রাস্তায় দারিদ্রতা আসে।

প্রস্রাবের জায়গায় যারা উঁচু করেঃ প্রস্রাবের জায়গায় যারা উঁচু করে দরিদ্রতা আসতে পারে। এজন্য ওলামায়ে কেরামগণ বলে থাকেন বাথরুমে ঢুকে ওযু করা ত্যাগ করাই উচিত। তার একান্তই অজু করতে হলে স্ট্যান্ডার স্থান থেকে দূরে সরে পবিত্র স্থানে দাঁড়িয়ে ওযু করা উচিত।

দাঁড়িয়ে পানি পান করলে

দাঁড়িয়ে পানি পান করলেঃ দাঁড়িয়ে পানি পান করলে দরিদ্রতা কখনোই ছাড়ে না। আমরা জানি অনেক সময় দাঁড়িয়ে পানি পান করা মৃত্যুর কারণ পর্যন্ত হয়ে যেতে পারে। বর্তমান মেডিকেল সাইন্স আমাদের তাই বলছে। সুতরাং রাসূলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর সুন্নাহ যা বর্তমান চিকিৎসাবিজ্ঞান তারা সিদ্ধ। তথা সর্বসময় বসে পানি পান করব এটাই রাসুল পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর সুন্নাহ। দাঁড়িয়ে পানি পান করার সুন্নাহ পরিপন্থী কেউ দাঁড়িয়ে পানি পান করলে দরিদ্রতা তার দুয়ারে এসে হানা দিতে পারে।

মানুষেসের দারিদ্রতা দুর হয় জেনে নিন

 ফু দিয়ে বাতি নিভানঃ ফু দিয়ে বাতি নিভান অনেক সময় মোমবাতি বা ইত্যাদি জিনিস ফু দিয়ে নেভানো দাড়াও দরিদ্রতার সম্মুখীন হন। কারণ হচ্ছে হাত দিয়ে জানানো কাটে আল্লাহু আকবার.।

হাতের নখ দাত দিয়া কাটিঃ বাজি এবং নোংরা একটি অভ্যাস আমাদের অনেকেই এই অভ্যাস টি  রয়েছে যারা হাতের নখ দাত দিয়া কাটি। যাদের এই জাতীয় অভ্যাস টি  রয়েছে তারা আজকেই তা ত্যাগ করে ফেলুন। রব্বুল আলামীনের দরবারে ইস্তেগফার করুন দরিদ্রতা আপনার দুয়ারে আসবে না। যদি ত্যাগ না করে এই কাজটি করেই যেতে থাকেন তাহলে দরিদ্রতা আপনার দুয়ারে হানা দিতে থাকবে।

খাবার দাবারের পরিধেয় বস্ত্র তারা মুখ সাফ

খাবার দাবারের পরিধেয় বস্ত্র তারা মুখ সাফ করেঃ  যারা খাবার দাবারের পরিধেয় বস্ত্র তারা মুখ সাফ করে। এটি একেতো একটি অসামাজিক এবং নোংরা কাজ এবং এর ফলে আপনার শরীরে খাবারে জীবাণু নিয়ে আপনি বহন করছেন। আর পরিধেয় বস্ত্র নোংরা করে ফেল রুচিশীল মানুষরা এই কাজটি করে না। কিন্তু তারপরও যদি কেউ করে থাকে এ বদ অভ্যাস ত্যাগ করবেন। খাবারের পরে গায়ে পরিধেয় বস্ত্র দিয়ে মুখ হাত মুছবেন না। এই অভ্যাস এর জন্য দরিদ্রতা আমাদের মাথার উপরে ভর করে বসে। সুপ্রিয় আলোর পথের যাত্রী বিন্দু এই বিষয় গুলো  আপনারা ত্যাগ করে ফেলুন দরিদ্রতা আপনার ধারে কাছে আসবে না ইনশাআল্লাহ

হালাল উপার্জনের জন্যঃ আর হালাল উপার্জনের জন্য আল্লাহ রব্বুল আলামীনের দরবারে প্রতিনিয়ত সেজদায় গিয়ে দোয়া করতে থাকুন। নিঃসন্দেহে সেজদার মাধ্যমে আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের সবচেয়ে নিকটে পৌঁছে যায়। তার গোলাম হয়ে মায়াবুদ এর দরবারে চোখের পানি ফেলে সেজদায় লুটিয়ে পড়ে আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে নিজের মনের বাসনা আকুতি-মিনতি সকল কিছু উপস্থাপন করুন। ইনশাল্লাহ তিনি সবার ডাক শুনেন।  তিনি অবশ্যই আপনার দোয়া কবুল করবেন।

Add a Comment

Your email address will not be published.